সোমবার | ১৪ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৩১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

desh24.com.bd সত্যের সন্ধানে আমরা
       
সত্যের সন্ধানে আমরা

ঈশ্বরদীর স্কুলছাত্র তারিফ উদ্ভাবন করলেন সাশ্রয়ী অক্সিজেন প্লান্ট

ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি

ঈশ্বরদীর স্কুলছাত্র তারিফ উদ্ভাবন করলেন সাশ্রয়ী অক্সিজেন প্লান্ট

‘অক্সিজেনের অভাবে একজন মানুষ কীভাবে মৃত্যুযন্ত্রণা অনুভব করেন, তা আমি আমার বাবার মৃত্যু দেখে অনুভব করেছি বললেন তারিফ। শ্বাসকষ্ট নিয়ে বাবা আব্দুস সালাম গত বছরের ২ আগস্ট হাসপাতালে আমার চোখের সামনে মারা যান। এর পর সংকল্প করি- অক্সিজেনের অভাবে কাউকে আর এভাবে যেন মৃত্যুবরণ করতে না হয়, সে জন্য কিছু একটা করব।

 

নিজের উদ্ভাবন করা অক্সিজেন জেনারেটর ও কনসেন্ট্রেটর নিয়ে এমন কথাই বলছিলেন পাবনার ঈশ্বরদীর এসএম মডেল সরকারি স্কুল অ্যান্ড কলেজের দশম শ্রেণির ছাত্র তাহের মাহমুদ তারিফ। ঈশ্বরদী শহরের কলেজ রোডে বকুলের মোড় এলাকার ছেলেটি মাত্র ১০ মাসের মাথায় সংকল্প বাস্তবায়ন করে ফেলেছেন।

 

এসএম মডেল সরকারি স্কুল অ্যান্ড কলেজ ও ঈশ্বরদী উপজেলা প্রশাসন তারিফের এ সাফল্যে মঙ্গলবার উপজেলা পরিষদে যৌথ সংবাদ সম্মেলন করে। এ সময় তারিফ তার এ উদ্ভাবন নিয়ে জানান, সাধারণত প্রতি মিনিটে ১০-১৫ লিটার অক্সিজেন সরবরাহ করে এমন অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটরের দাম ১ লাখ ২০ হাজার থেকে ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা। তার উদ্ভাবিত যন্ত্রটি প্রতি মিনিটে ২৫ লিটার অক্সিজেন সরবরাহ করতে সক্ষম। এটি স্থানীয় বিভিন্ন উপকরণে তৈরি করতে খরচ পড়েছে ৬৫ হাজার টাকার মতো। সম্পূর্ণ স্থানীয় প্রযুক্তির ব্যবহারে এটি তৈরি করতে সময় লেগেছে তিন সপ্তাহ। তবে পরবর্তী সময়ে এটি ২০ থেকে ৩০ হাজার টাকায় তৈরি করা সম্ভব হবে।

 

তারিফ জানান, তার উদ্ভাবিত অক্সিজেন জেনারেটর ও কনসেন্ট্রেটর বাতাসের ২১ শতাংশ অক্সিজেনকে প্রক্রিয়াজাত করে ৯৮ শতাংশে রূপান্তর করে। এ যন্ত্র একটানা ৭ ঘণ্টা অক্সিজেন সরবরাহে সক্ষম। এর পর মাত্র ১০ মিনিট বিরতি দিলে আবারও টানা ৭ ঘণ্টা চলে। তারিফ তার নিজের নামের আদ্যাক্ষর দিয়ে এর নামকরণ করেছেন ‘টি.এল.আর-সিভি. ১৯’।

 

কৃতজ্ঞচিত্তে তারিফ জানান, যন্ত্রটি যখন উদ্ভাবনের প্রাথমিক পর্যায়ে ছিল, অধ্যক্ষ আয়নুল ইসলাম তাকে স্কুল থেকে আর্থিক সহযোগিতা ও উৎসাহ দেন। পরে ইউএনও পিএম ইমরুল কায়েসকে জানানো হলে তিনিও উপজেলা প্রশাসন থেকে পৃষ্ঠপোষকতা করেন। এ ছাড়া শিক্ষক ফারজানা ইয়াসমিন দীনা, গোলাম মওলা, রঞ্জন কুমার কুণ্ডু, মতিয়ার রহমান ও মখলেছুর রহমান ব্যাপক সহযোগিতা করেছেন। দু’জন সহপাঠী মুনতাসির শ্রাবণ ও জিহাদ হাসানকে ‘টিম মেম্বার’ আখ্যা দিয়ে তারিফ জানান, তাদের সার্বক্ষণিক সহযোগিতাও ভোলার নয়।

 

ঈশ্বরদীর ইউএনও পিএম ইমরুল কায়েস বলেন, করোনা মহামারির মধ্যে যখন ঘরে বসে শিক্ষার্থীরা অলস সময় কাটাচ্ছে, তখন তারিফ এমন একটি উদ্ভাবনের মাধ্যমে দেশকে জাগিয়ে তুলেছে।

 

এসএম মডেল সরকারি স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ আয়নুল ইসলাম বলেন, তারিফ একজন মেধাবী শিক্ষার্থী। তার সাফল্যে শুধু স্কুল বা উপজেলা প্রশাসন নয়, গোটা ঈশ্বরদীবাসী গর্বিত।

 

তারিফের মা তছলিমা খাতুন বলেন, তারিফের সাফল্য দেখে আমার বুকটা ভরে গেছে। মা হিসেবে আমি গর্বিত। তারিফের শিক্ষক ফারজানা ইয়াসমিন দীনা বলেন, তারিফের এই সাফল্যে আমার শিক্ষক জীবন সার্থক।।

Facebook Comments Box

Posted ১:৪০ অপরাহ্ণ | বুধবার, ০৯ জুন ২০২১

desh24.com.bd |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  
               
সম্পাদক ও প্রকাশক:  এম আজাদ হোসেন    
               
বার্তা সম্পাদক:মো:মারুফ হোসেন  
নির্বাহী সম্পাদক:মো:ইনামুল হাসান  
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় :                

শ্রীসদাস লেন,বাংলাবাজার , ঢাকা-১১০০ ফোনঃ ০১৯৭২-৪৭০৭৮১

ই-মেইল: infodesh24@gmail.com

           
Desh24 provides you latest and the most reliable Bangla news on sports, entertainment, lifestyle, politics, technology, features and cultures.